পাকিস্তানকে হারিয়ে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ চ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ড

বার্তাসেন্টার সংবাদদাতা

রবিবার, ১৩ নভেম্বর ২০২২, ২৩:২৭

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ চ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ড । পাকিস্তানকে ৫ উইকেটে হারিয়ে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে দ্বিতীয়বারের মতো শিরোপা জিতে নিলো ইংল্যান্ড।

বিশ্বকাপ চ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ড
দ্বিতীয়বারের মতো টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ চ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ড

ঐতিহাসিক মেলবোর্ন ক্রিকেট গ্রাউন্ডের ফাইনালে টস জিতে পাকিস্তানকে ব্যাটিংয়ে পাঠিয়েছিলো ইংলিশ অধিনায়ক জস বাটলার। ইংল্যান্ডের বোলিং আক্রমণের মুখে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৮ উইকেটে হারিয়ে মাত্র ১৩৭ রান তুলতে পারে পাকিস্তান। টি-২০ বিশ্বকাপের ফাইনালে পাকিস্তানের দেওয়া ১৩৮ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে ৬ বল হাতে রেখেই ৫ উইকেটে জয় নিয়ে বিশ্বসেরার মুকুট মাথায় তোলে জস বাটলারের দল।

১৩৮ রানে টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে শুরুতে ইংলিশ ব্যাটিং লাইনআপও ধাক্কা খেয়েছিলো পাকিস্তানি পেসারদের সামনে। তবে পাকিস্তানি বোলারদের তোপ সামলে বেন স্টোকসের ব্যাটিং দৃঢ়তায় ৫ উইকেটের জয় দিয়েই দ্বিতীয়বারের মতো টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের শিরোপা জিতলো ইংল্যান্ড।

স্বল্প রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে শাহিন শাহ আফ্রিদির প্রথম ওভারটি দেখেশুনেই কাঁটিয়ে দিতে চেয়েছিলো দুই ইংলিশ ওপেনার জস বাটলার আর অ্যালেক্স হেলস।

ইনিংসের প্রথম ৫ বল থেকে ৭ রান তোলে ইংল্যান্ড। তবে শাহিন শাহ আফ্রিদির ওভারের শেষ বলে গতির কাছে পরাস্ত হন হেলস। বলের লাইন মিস করলে সেটি আঘাত হানে হেলসের মিডল স্ট্যাম্পে।

অল্প রানের পুঁজি নিয়েও প্রথম ওভারে ইংলিশ শিবিরে আঘাত হেনে অনেকটা পুনরীজ্জীবিত পাকিস্তান। হেলসের বিদায়ের পর ক্রিজে এসে বাটলারের সঙ্গী হন টুর্নামেন্টে প্রথম ব্যাট করতে নামা ফিল সল্ট।

প্রথম ওভারে উইকেট হারালেও নাসিম শাহের করা দ্বিতীয় ওভারেই পাল্টা আক্রমণ করেন ইংলিশ অধিনায়ক বাটলার আর সল্ট। দুই ব্যাটার মিলে তিন বাউন্ডারিতে এই ওভার থেকে নেন ১৪ রান। শাহিন শাহ আফ্রিদির করা তৃতীয় ওভার থেকেও বাটলারের এক বাউন্ডারিতে ৭ রান তোলে ইংল্যান্ড। তিন ওভার শেষে ১ উইকেট হারিয়ে ইংলিশদের রান দাঁড়ায় ২৮।

পাওয়ার প্লে’র শেষ শেষে ইংলিশদের সংগ্রহ দাঁড়ায় ৩ উইকেটে ৪৯ রান। দ্রুত ৩ উইকেট হারিয়ে অনেকটা মন্থর হয়ে যায় ইংলিশদের রান তোলার গতি।

১০ম ওভারে বল হাতে আবারও ইংলিশ ব্যাটসম্যানদের সামনে আসেন মোহাম্মদ ওয়াসিম। ওভারের চতুর্থ বলে ওয়াসিমকে বাউন্ডারি মেরে রানের গতি বাড়ানোর চেষ্টা করেন স্টোকস। ১০ ওভার শেষে ইংলিশদের সংগ্রহ দাঁড়ায় ৩ উইকেটে ৭৭ রান। জয়ের জন্য শেষ ১০ ওভারে প্রয়োজন হয় ৬১ রানে।

আরও পড়ুন: ভারতকে উড়িয়ে ফাইনালে ইংল্যান্ড

ইনিংসের ১৫ তম ওভারে ফের বোলিংয়ে আসেন হারিস রউফ। প্রথম বল ডট দিয়ে দ্বিতীয় বলে ২ রান নেন স্টোকস। ওভারের তৃতীয় বলে সিঙ্গেল নেন স্টোকস। চতুর্থ বলে ফের সিঙ্গেল নেন মঈন। পঞ্চম বল ডট করেন হারিস। ওভারের শেষ বলে চার মারেন স্টোকস। ১৫ ওভার শেষে ৪ উইকেট হারিয়ে ৯৭ রান সংগ্রহ করেছে ইংল্যান্ড। জয়ের জন্য শেষ ৩০ বলে ৪১ রান প্রয়োজন ইংল্যান্ডের।

১৬তম ওভারে ইফতিখার আহমেদ বোলিংয়ে আসলে তার ওপর চরাও হয়েছে স্টোকস। ওভারের শেষ দুই বলে ছয় চারে এই ওভার থেকে ১৩ রান তোলেন স্টোকস। পরের ওভারে মোহাম্মদ ওয়াসিমকে তিন বাউন্ডারি মেরে পাকিস্তানকে ম্যাচ থেকেই ছিটকে দিয়েছেন মঈন আলী।

শেষ তিন ওভারে শিরোপা জয়ের জন্য মাত্র ১২ রান প্রয়োজন ছিলো ইংলিশদের। ১৮তম ওভারে হারিস রউফ এসে কিছুটা আটকেছেন ইংলিশ দুই ব্যাটসম্যানকে। মাত্র ৫ রান আসে এই ওভার থেকে।

১৯তম ওভারে এসে মঈন আলীকে ফিরিয়ে পাকিস্তানকে আশার আলো দেখিয়েছিলেন ওয়াসিম। তবে ১২ বলে ১৯ রান করে ফেরার আগেই ইংলিশদের জয় প্রায় নিশ্চিত করেই গেছেন মঈন। তার বিদায়ের এক বল পরেই ওয়াসিমকে বাউন্ডারি মেরে স্কোর লেভেল করেন স্টোকস। ওভারের শেষ বলটি মিডউইকেটে ঠেলে দিয়েই সিঙ্গেল নেন স্টোকস। আর তার এই সিঙ্গেলেই পাকিস্তানকে হারিয়ে দ্বিতীয় বার টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ চ্যাম্পিয়ন হয় ইংলিশরা।

Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *